সশব্দে পাদ মারা অপরাধে যুবকের মৃত্যুদণ্ড-কোথায়? কেনো? বিস্তারিত জানুন এখানে

পাদ মানুষ তথা অন্যান্য প্রাণীদের একটি স্বাভাবিক শারীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়া। আমরা যে খাদ্য গ্রহণ করি তখন শুধুমাত্র খাদ্য গলাধঃকরণ করিনা; তার সাথে মিশে যায় পর্যাপ্ত পরিমাণ বায়ু! থাকে অক্সিজেন, নাইট্রোজেন, হাইড্রোজেনের মত কিছু গ্যাস যা মিলিত ভাবে সোডা ও মিথেন তৈরি করে! যখন লার্জ ইন্টেস্টাইনে এই খাদ্য পরিপাক হয় তখন এই গ্যাসগুলি কোথাও না কোথাও সরে যেতে চায়! এছাড়া এমন কোনো খাদ্য যা অ্যাসিড গ্যাস উৎপাদন করে সেগুলো পায়ুপথে বেরিয়ে আসে; এই শারীরবৃত্তীয় ভাবে নিষ্ক্রিয় বায়ুকেই পাদ বলে!

পাদ নিয়ে ঘটেছে ইতিপূর্বে অনেক জোক্স, হাসিতামাশা; তবে কখনো শুনেছেন পাদ মারার অপরাধে কারো মৃত্যুদণ্ড সম্ভব? আসুন জেনে নি-

ঘটনাটি ঘটেছে এক পাকিস্তানি যুবক ইয়াকুব আনসারির ক্ষেত্রে! পাকিস্তানের লাহোর নিবাসী ব্লগার ইয়াকুব তার একটি ভিডিও ব্লগের শ্যুটিং করছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকা পার্শ্ববর্তী দেশ বোতসোয়ানার বুশম্যান উপজাতিদের উপর! তথাকথিত বুশম্যান উপজাতি বর্তমান মানব সভ্যতার ছোঁয়া থেকে এখনো অনেক দূরে!

বুশম্যানদের সাথে এক মডেল

ঘটনা প্রসঙ্গে, বনজঙ্গল নিবাসী শুষ্ক অঞ্চলের বুশম্যানরা তাদের প্রথা অনু্যায়ী বৃষ্টির আরাধনায় একমনে মগ্ন ছিলেন। আরে সেটা ব্লগের শ্যুটিং করছিলেন ইয়াকুবরা। হঠাৎ বিকট শব্দে বাত কর্ম করেন ইয়াকুব যাতে তাদের আরাধনা ভঙ্গ হয় বুশম্যানদের। সভ্যতা থেকে অনেক পিছিয়ে থাকা বুশম্যানরা ক্ষিপ্ত হয়ে আটক করেন ইয়াকুব ও তার টিমকে।

ঘটনাচক্রে শোনা যাচ্ছে তাদের প্রধানের নির্দেশ স্বরূপ ইয়াকুবকে মৃত্যুদন্ডে দন্ডিত করা হয়। তবে ঘটনার সত্যতা নিয়ে এখনো ধোঁয়াশা রয়েছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*